দ্যা হান্ড্রেড : অন্যরকম ক্রিকেট !

last year

hundred.jpg

Source

বর্তমানে জনপ্রিয় খেলাগুলোর মধ্যে ক্রিকেট একটি অন্যতম জনপ্রিয় খেলা। ১৫ মার্চ ১৮৭৭ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট ক্রিকেটের যাত্রা শুরু হয় । এ খেলার স্থায়িত্ব দীর্ঘ ৫ দিন। অত্যাধিক সময় ও ধীরগতির রানের সংগ্রহ এর কারণে এ খেলা জনপ্রিয়তা অর্জন করতে ব্যার্থ হয়। আমি ব্যাক্তিগতভাবে এমনটাই মনে করি । জনপ্রিয়তা অর্জন করতে ব্যার্থ হওয়ার পেছনে অন্য কোন কারণও থাকতে পারে । তবে এটা স্পষ্ট যে টেস্ট ক্রিকেট দর্শকের জনপ্রিয়তা অর্জনে ব্যার্থ হয়েছিল ।

প্রায় একশত বছর পর ১৯৭১ সালে ক্রিকেটকে আরও জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে একদিনের ফরম্যাটের ক্রিকেট চালু করা হয় যেখানে প্রতিটি ইনিংসে ওভার নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয় । এ ফরম্যাটেও একটি খেলা শেষ হতে প্রায় ৬ ঘন্টা সময় লেগে যায়। এ খেলাটি অনেক দেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠলেও কিছু দেশ এটিকে সময়ের অপচয় বলে মনে করত। এ কারণে অনেক দেশ ক্রিকেট খেলতে আপত্তি প্রকাশ করে । সে সময়েও ক্রিকেট আশানুরূপ জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেনি। তবে থেমে থাকেনি ক্রিকেট বোর্ড । তারা ক্রিকেটকে সমগ্র বিশ্বে জনপ্রিয় করে তুলতে খুঁজতে থাকে নতুন কৌশল । অতঃপর ২০০৩ সালে খেলার সংক্ষিপ্ততম সংস্করণ হিসেবে বিবেচিত টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেট ইংল্যান্ডে আন্তঃকাউন্টি ক্রিকেট প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এর শুভসূচনা ঘটে। ক্রিকেটের এ সংস্করণটি ব্যাপক দর্শক জনপ্রিয়তা পায় । ২০০৫ সাল থেকে এটি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পায় । ক্রিকবাজের তথ্যানুসারে বর্তমানে টেস্ট খেলুড়ে দেশ ১২ টি ও ওয়ানডে খেলুড়ে দেশ ২০ টি হলেও টুয়েন্টি টুয়েন্টি খেলুড়ে দেশ রয়েছে ৮৫ টি । এ পরিসংখ্যান থেকেই টুয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা উপলব্ধি করা যায়।

ক্রিকেটকে আরও আকর্ষনীয় করে তুলতে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড নতুন সংস্করণ চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সংস্করণের নাম দেওয়া হয়েছে ”দ্যা হানড্রেড” যেখানে খেলা হবে মাত্র ১০০ বলের । ২০২০ সালের জুলাই মাসে ৮ টি দলের অংশগ্রণে শুভ সূচনা হতে যাচ্ছে এ সংস্করণের । যেহতেু টুয়েন্টি টুয়েন্টি নামক ১২০ বলের একিটি সংস্করণ ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিকভাবে চালু রয়েছে তাই এ সংস্করণের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীন । তবে এ সংস্করণও যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাবে এতে কোন সন্দেহ নেই।
এ ফরম্যাটে একজন বোলার সর্বোচ্চ ২০ টি বল করতে পারবে যা ওভার হিসেবে ৩ ওভার ও ২বল । তবে মজার বিষয় হচ্ছে এ ফরম্যাটে একজন বোলার একাধারে ৫ টি অথবা ১০ টি বল করতে পারবে । বুঝায় যাচ্ছে এখানে ওভার বিবেচনায় আসবেনা যা ক্রিকেট ইতিহাসে একেবারেই নতুন । অন্যান্য ফরম্যাটের মত এ ফরম্যাটেও থাকছে পাওয়ার প্লে তবে এখানেও বিবেচনায় আসছেনা ওভার । পাওয়ার প্লে তে থাকছে ২৫ বল । পাওয়ার প্লে তে মাত্র ২ জন ৩০ গজ সার্কলের বাহিরে থাকতে পারবে ।





Follow WeKu Official on social media:

Facebook:
https://www.facebook.com/weku.chain.3

Twitter:
https://twitter.com/WeKuBlockchain

YouTube:
https://www.youtube.com/channel/UC2jRdsmDshSExpaCbVhghtw

Telegram:
https://t.me/joinchat/HfYdIFAe4k2ZXOH1P6ozHA

Discord:
https://discord.gg/zPTpGP7



Screenshot 2019-03-01 at 16.46.02.png


In case you want to appeal or let us know about any kind of abuse that you might have came across in the platform, feel free to reach us here:

WeKuBusters Official Discord

https://discord.gg/GwmYBnV

Screenshot 2019-02-11 at 01.18.08.png
Screenshot 2019-02-14 at 22.06.36.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE WEKU!
Sort Order:  trending

i love this cricket